দেশে বর্তমানে চিকিৎসাধীন কোভিড সংক্রমিত ৩,৩১,১৪৬ জন

খবরইন্ডিয়াঅনলাইন, নয়াদিল্লিঃ মোট সংক্রমিতের এক-তৃতীয়াংশ বর্তমানে চিকিৎসাধীন

৬ লক্ষ ১০ হাজার জনের বেশি সংক্রমিত সুস্থ হয়েছেন
রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির সঙ্গে কেন্দ্র একযোগে সক্রিয় এবং সচেতনভাবে বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণের ফলে দেশ জুড়ে কোভিড-১৯ মহামারীর যথাযথভাবে মোকাবিলা করা সম্ভব হচ্ছে। প্রতিদিন সর্বোচ্চ স্তরে বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়ে পর্যালোচনার কাজ চলছে।

কোভিড মোকাবিলায় গৃহীত নানা পদক্ষেপের ফলে চিকিৎসাধীন সংক্রমিতের সংখ্যা ক্রমশ হ্রাস পাচ্ছে। আজকের হিসেবে মাত্র ৩,৩১,১৪৬ জন চিকিৎসাধীন। মোট সংক্রমিতের এক-তৃতীয়াংশের কিছু বেশি – ৩৪.১৮ শতাংশ বর্তমানে চিকিৎসাধীন। বাড়ি বাড়ি সমীক্ষা, বিভিন্ন লক্ষণ দেখে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা, কন্টেনমেন্ট এলাকায় নজরদারি, সংক্রমিতদের সংস্পর্শে যাঁরা যাঁরা এসেছেন তাঁদের খেয়াল রাখা, নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা বাড়ানো, মাঝারি এবং তীব্র সংক্রমিতদের যথাযথ চিকিৎসার ব্যবস্থা করা সহ বিভিন্ন সময়োচিত পদক্ষেপের জন্য দেশ জুড়ে কোভিড-১৯ মহামারীর সংক্রমণ আয়ত্ত্বের মধ্যে রয়েছে। সংক্রমিতরা দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠছেন।

আরও পড়ুন -  এই ওয়েব সিরিজ রোমান্সে ভরপুর, আগে ঘর বন্ধ করুন তারপর দেখবেন

রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির সঙ্গে কেন্দ্রীয় সরকার যৌথভাবে নমুনা পরীক্ষা, স্বাস্থ্য পরিকাঠামো, সারি এবং আইএলআই সংক্রমিতদের নজরদারি, প্রবীণ নাগরিকদের প্রতি বিশেষ খেয়াল রাখা এবং যাঁরা আগে থেকেই নানা জটিল অসুখে ভুগছেন, তাঁদের যথাযথ চিকিৎসার ব্যবস্থা করায় সারা দেশে আরোগ্য লাভের হার বৃদ্ধি পাচ্ছে।

জুন মাসের মাঝামাঝি সময়ে দেশে সুস্থ হয়ে ওঠার হার ছিল ৫০ শতাংশ। এই হার ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। অন্যদিকে, সংক্রমিতের হারও ক্রমশ হ্রাস পাচ্ছে। বর্তমানে ৬৩.২৫ শতাংশ কোভিড সংক্রমিত সুস্থ হয়ে উঠেছেন। একইসঙ্গে, জুন মাসের মাঝামাঝি সময়ে যেখানে চিকিৎসাধীন ব্যক্তি ছিলেন ৪৫ শতাংশ, বর্তমানে সেই সংখ্যা কমে ৩৪.১৮ শতাংশ হয়েছে।

আরও পড়ুন -  মুখ্যমন্ত্রী উদ্বোধন করবেন টালা ব্রিজ মহালয়ার আগেই, বাস কবে থেকে চলবে?

গত ২৪ ঘন্টায় ২০,৭৮৩ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এর ফলে, সারা দেশে সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যা ৬,১২,৮১৪। চিকিৎসাধীন ব্যক্তির থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২,৮১,৬৬৮ জন বেশি।

বর্তমানে দেশে ১,৩৮১টি কোভিড নির্ধারিত হাসপাতাল রয়েছে। ৩,১০০টি কোভিড স্বাস্থ্যকেন্দ্র আছে। দেশে কোভিড সংক্রমিতদের জন্য কেয়ার সেন্টারের সংখ্যা ১০,৩৬৭টি। সারা দেশে ৪৬,৬৬৬টি আইসিইউ বেডের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

দেশের কয়েকটি জায়গা বাদ দিলে কেন্দ্র এবং রাজ্যগুলির সমন্বিত প্রয়াসে কোভিড সংক্রমণের হার বেশ কম। মহারাষ্ট্র এবং তামিলনাড়ু – এই দুটি রাজ্যে দেশে মোট সংক্রমিতের ৪৮.১৫ শতাংশ রয়েছেন। ৩৬টি রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের মধ্যে মাত্র ১০টি রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে মোট সংক্রমণের ৮৪.৬২ শতাংশ সংক্রমিত আছেন। কেন্দ্র সংশ্লিষ্ট রাজ্যগুলির সঙ্গে কন্টেনমেন্ট এলাকার ব্যবস্থাপনা ও সংক্রমিতদের যথাযথ চিকিৎসা নিশ্চিত করার জন্য নানা ব্যবস্থা নিয়েছে।

আরও পড়ুন -  Corona Virus: বিশ্বজুরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা প্রতিদিনই বাড়ছে

কোভিড-১৯ এর বিষয়ে বস্তুনিষ্ঠ তথ্যের জন্য এবং এই মহামারী প্রতিরোধের বিষয়ে যে সব নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে তা জানতে https://www.mohfw.gov.in/ লিঙ্কটি ক্লিক করুন। অথবা ট্যুইটার হ্যান্ডেল @MoHFW_INDIA.-এর সাহায্য নিতে পারেন।

কোভিড-১৯ এর বিষয়ে কোন জিজ্ঞাস্য থাকলে technicalquery.covid19@gov.in অথবা ncov2019@gov.in – এই দুটি ই-মেলে যোগাযোগ করা যাবে। ট্যুইটার হ্যান্ডেল @CovidIndiaSeva-এ ও প্রশ্ন করা যাবে।

এছাড়াও +৯১-১১-২৩৯৭ -৮০৪৬ অথবা নিঃশুল্ক নম্বর ১০৭৫ এ ফোন করা যাবে। বিভিন্ন রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে কোভিড–১৯ সংক্রান্ত হেল্প লাইন নম্বরগুলির তালিকা পেতে চাইলে নীচের লিঙ্কে ক্লিক করুন –
https://www.mohfw.gov.in/pdf/coronvavirushelplinenumber.pdf

সূত্র – পিআইবি।

Leave a Comment